মাধ্যমিক শিক্ষা প্রস্তাবনা ২০১৬

From Notun boi
Jump to: navigation, search

>> ২০১২ সালের কারিকুলাম পর্যালোচনা করতে দেশের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন।

>> পাবলিক পরীক্ষার সময় চাপ কমাতে এসএসসি পর্যায়ে শারীরিক শিক্ষা, স্বাস্থ্য বিজ্ঞান ও খেলাধুলা, চারু ও কারুকলা, ক্যারিয়ার শিক্ষা বিষয়গুলোকে পাবলিক পরীক্ষার অন্তর্ভুক্ত না করে এ বিষয়গুলো বিদ্যালয় পর্যায়ে সম্পূর্ণভাবে ধারাবাহিক মূল্যায়নের আওতায় আনা। এসব বিষয় স্কুল পর্যায়ে যথাযথভাবে পড়ানো এবং শিক্ষার্থীদের কাছে আকর্ষণীয় করতে কার্যকর পদ্ধতি উদ্ভাবন।

>> স্কুল পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের বই পড়ার জন্য ‘কো-কারিকুলাম অ্যাক্টিভিটিজ’ অন্তর্ভুক্ত করা। বছরের একটি দিনকে বইপড়া দিবস হিসেবে পালন করা।

>> পাঠদানে শিক্ষকদের সহায়তায় উপযুক্ত ‘শিক্ষক গাইডলাইন’ যথাসময়ে প্রণয়ন ও মানোন্নয়ন করা।

>> এমসিকিউ ও সৃজনশীল প্রশ্নের মানোন্নয়নে আইটেম ব্যাংক (প্রশ্ন ব্যাংক) তৈরি করা।

>> শিক্ষার্থীদের উত্তর লেখায় সহযোগিতা করতে প্রশ্নের সঙ্গে নমুনা কিছু উত্তর যাচাই-বাছাই করে সরবারহ করা।

>> যশোর শিক্ষা বোর্ড প্রাথমিকভাবে যে প্রশ্ন ব্যাংক তৈরি করেছে, তাদের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে আইটেম ব্যাংক প্রণয়নে ধারণাপত্র তৈরি করা। >> সব শিক্ষককে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন ও উত্তরপত্র মূল্যায়নে আবশ্যিকভাবে সম্পৃক্ত করা।

>> ২০১৯ সাল থেকে সব বোর্ডে অভিন্ন প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেওয়া।

>> বিশ্বে প্রচলিত পরীক্ষা পদ্ধতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করতে পাবলিক পরীক্ষার ফল প্রকাশে ‘র স্কোর’ এর পরিবর্তে ‘স্ট্যান্ডারাইজড স্কোর’ ব্যবহার।

>> ‘স্ট্যান্ডারাইজড স্কোর’ ব্যবহার করে ২০১৭ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে একটি পরীক্ষামূলক ফল তৈরি।

>> ফলাফল মূল্যায়নে নতুন পদ্ধতিতে যাওয়ার আগে অভিভাবক, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, গণমাধ্যমকর্মী এবং সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা ও মতবিনিময় করা।

>> নবম-দশম শ্রেণির নির্বাচিত কয়েকটি পাঠ্যবই পরিমার্জন করে সুখপাঠ্য, আকর্ষণীয় ও সহজবোধ্য করতে শিক্ষাবিদ ও লেখকদের নিয়ে একটি প্যানেল তৈরি করা। এই প্রক্রিয়ায় সংশ্লিষ্ট বিষয়ের শ্রেণি শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্ত করা।

>> পাঠ্যপুস্তক পরিমার্জনের জন্য ‘টাইম বাউন্ড অ্যাকশন প্ল্যান’ তৈরি করতে হবে, যাতে ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারির আগেই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিমার্জিত পাঠ্যপুস্তক পৌঁছানো নিশ্চিত হয়।

>> শিক্ষার মানোন্নয়নের অপরিহার্য শর্ত হিসেবে শিক্ষা বাজেট ‘পর্যাপ্ত পরিমাণে’ বাড়ানো।

-Collected.


Share your opinion